বুধবার, ১৬ Jun ২০২১, ০৪:১৮ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ
শর্ত সাপেক্ষে অটোপাস পাচ্ছেন অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা পুলিশ ম্যাজিকের মতো সবকিছু করেছেন: পরীমণি দেশে জনসনের ভ্যাকসিনের অনুমোদন মাদারীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২,আহত ১ দেশে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৭৩ হাজার ৫১৪ জন রাষ্ট্রপতি কাজাখ রাজধানীতে ওআইসি সম্মেলনে ভার্চুয়ালি যোগ দিবেন সবুজ-শ্যামল বাংলাদেশ আরো সবুজ হোক: প্রধানমন্ত্রী জয়পুরহাটে গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু ৫০, শনাক্ত ৩৩১৯ মোংলা বন্দরে যুক্ত হচ্ছে মাল্টিপারপাস মোবাইল ক্রেন সংসদে হজ ও ওমরা ব্যবস্থাপনা বিল পাস বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটিতে চাকরি পরীক্ষার স্থান, সময় ও প্রার্থীর তালিকা সাধারণ বীমা করপোরেশনের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে পরীমনিকে সাহায্য করেনি পুলিশ, প্রমাণ সিসিটিভি ফুটেজে ডিবি কার্যালয়ে পরীমনি
জয়পুরহাটের পাঁচবিবি মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

জুয়েল শেখ, জয়পুরহাট জেলা প্রতিনিধি:

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন ভারতের বালুরঘাট মালঞ্চা ক্যাম্পে প্রশিক্ষণ নিয়ে দেশকে শত্রুমুক্ত করার প্রত্যয়ে অনেকেই ঝাঁপিয়ে পড়ে মুক্তিযুদ্ধে।

জয়পুরহাটের পাঁচবিবির সীমান্তবর্তী রতনপুর গ্রামের মৃত আয়েজ উদ্দিনের ছেলে আকরাম হোসেন প্রামানিকও (৬৫) অংশ গ্রহন করেছিল স্বাধীনতা যুদ্ধে।

দেশ স্বাধীন হলো অনেকেই বীর মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেল আজও পায়নি আকরাম। রাষ্ট্রীয় ভাবে স্বীকৃতি না পেলেও এলাকাবাসী তাকে মুক্তিযোদ্ধা বলেই মনে করেন। ইতিপূর্বে সরকারি ভাবে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাচায়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল ও সাক্ষ্য প্রমান জোগাড় করেও ফল হয়নি। জীবন বাজি রেখে স্বাধীনতা যুদ্ধে সক্রিয় ভুমিকা রাখলেও স্বাধীনতার ৫০ বছর পেরিয়ে গেলেও মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি না পেয়ে হতাশায় দিন কাটছে তাঁর। পরিচয় বিহীন এই মুক্তিযোদ্ধা মসজিদের জায়গায় স্ত্রী এক ছেলে ও মেয়ে নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। আবারও যাচাই-বাচায়ের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির দাবিতে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সরকারের প্রতি আকুতি জানায় আকরাম ও তাঁর পরিবাব।

সহযোদ্ধা স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা সামেদ আলী বলেন আমরা যখন প্রশিক্ষণ শেষ করে দেশে যুদ্ধ করতে আসি তখন তাকে প্রশিক্ষণ নিতে দেখেছি। তিনি আরো বলেন প্রশিক্ষণ শেষে কে কোথায় যুদ্ধ করেছে জানি না তবে দেশ স্বাধীনের পর বগুড়া শাহ সুলতান কলেজ মাঠে মুক্তিযোদ্ধাদের অস্ত্র জমা দেওয়ার সময় আকরামকেও দেখেছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ বরমান হোসেন বলেন, কিছুদিন আগেই সরকারি ভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা যাচাই-বাচাইয়ের কার্যক্রম শেষ হয়েছে।

নতুন করে সেই তালিকায় কাউকে নেওয়ার সুযোগ নেই বলে আমার মনে হয় বলে জানান এই কর্মকর্তা আর সাংবাদিক আকতার হোসেন বকুল সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply




মালিকানা স্বত্ব © এমএমবি নিউজ ২৪- ২০২১
ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ।