শুক্রবার, ২৩ Jul ২০২১, ০৯:৩৪ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ
কোরবানি নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য, আটক প্রধান শিক্ষক হংকং ক্রিকেটে দলের অধিনায়ক আইজাজ খান গ্রেফতার মাইন প্রতিরোধী গাড়ির প্রথম চালান ঢাকায় বিধিনিষেধ ভঙ্গ করে চলছে ফেরি, পায়ে হেঁটে ঢাকা আসছে মানুষ ১৮ বছর হলেই পাওয়া যাবে করোনার টিকা, সিদ্ধান্ত দ্রুতই টি-টোয়েন্টি সিরিজে সমতা ফেরালো জিম্বাবুয়ে বিধিনিষেধের প্রথম দিনে রাজধানীতে ৪০৩ জন গ্রেপ্তার বরগুনার দুই নারী কামারের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ আফগান বাহিনীকে সহযোগিতায় কয়েক দফা বিমান হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র : পেন্টাগন দ.আফ্রিকায় সহিংসতায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৩৭ পর্দা উঠল টোকিও অলিম্পিকের সন্তানকে রক্ষা করে মারা গেলেন মা পদ্মার পিলারে ফেরির ধাক্কা, তদন্ত কমিটি গঠন বিধিনিষেধ অমান্য: মালয়েশিয়ায় ২৫ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মৃত্যু ১৬৬, শনাক্ত ৬৩৬৪
মানব জীবনের বৈচিত্র্য বিষয় নিয়ে প্রাণীবিদ্যা বিভাগের এক শিক্ষার্থীর সাক্ষাৎকার

মানব জীবনের বৈচিত্র্য বিষয় নিয়ে প্রাণীবিদ্যা বিভাগের এক শিক্ষার্থীর সাক্ষাৎকার

নেত্রকোনা প্রতিনিধি:

সৃষ্টিজগতে লক্ষ লক্ষ প্রাণী রয়েছে। তার মধ্যে মানুষ হচ্ছে সৃষ্টির সেরা জীব বা আশরাফুল মাখলুকাত। মানব জীবনের বৈচিত্র্য বিষয় নিয়ে mmbnews24 এর নেত্রকোনা প্রতিনিধি মোঃ রাসেল হাসানের নেওয়া নেত্রকোনা সরকারি কলেজের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের মেধাবী ছাত্রী সুরাইয়া আক্তারের সাক্ষাতকার।

রাসেল: সৃষ্টিজগতের এত এত প্রাণী নিয়ে পড়া, রিচার্জ এবং অনুধাবন করতে গিয়ে মানুষকে কিভাবে দেখেন কিংবা উপলব্ধি করেন?

সুরাইয়া: পড়াশোনা করার কোন বিকল্প অবশ্যই নেই। পড়াশোনাটাও আল্লাহ্তালার একটি বড় নিয়ামত। সেখানে প্রানীদের নিয়ে পড়াশোনা করা বা রিচার্জ করাটা এত স্বল্প সময়ে সম্ভব হয় না।পৃথিবীতে প্রায় এক ট্রিলিয়ন প্রানী আছে ।তাদের প্রত্যেকের জীবন ব্যবস্থা,খাদ্য অভ্যাস, এবং চলন প্রকৃতি আলাদা আলাদা। তবে এদের মধ্যে কিছু প্রজাতির কিছু গঠনগত বৈশিষ্ট্য ,খাদ্য অভ্যাস ইত্যাদি নিয়ে পাঠ্যপুস্তকের আলোকে পড়া এবং রিচার্জ করা হয়ে থাকে। সকল প্রানীর মধ্যে অবশ্যই মানুষ ব্যতিক্রম, কেননা মানুষ তার বুদ্ধিমত্তার দ্বারাই সৃষ্টির সেরা জীব বা আশরাফুল মাখলুকাত। মানুষ হচ্ছে পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ প্রানী যাকে নিয়ে রিচার্জ এর শেষ হয় না ।মানুষ এর নিত্য নতুন রোগ, এবং তার প্রতিষেধক আবিষ্কারের কথা না হয় বাদ ই দিলাম। এটা বলা যায় যে,মানুষই একমাত্র প্রানী যার যার স্ট্রাকচার সৃষ্টি কর্থা এমন নিপুনভাবে তৈরি করেছেন যে যেটা আসলে অনুধাবন করেও শেষ করা যায় না।তাই বলা যায় সৃষ্টি জগতের সকল প্রানীর তুলনায় গঠনগত, আচরণগত,ও বৈশিষ্ট্যগত দিক থেকে মানুষ অলয়েচ আলাদা। একমাত্র সকল প্রানীর মধ্যে মানুষই কিন্তু পারে অন্য প্রানীদের নিয়ে গবেষণা করতে যেটার সৃজনশীলতা বা বিচার ক্ষমতা কিন্তু অন্য প্রানীদের মধ্যে নেই।তাই বলাযায় সৃষ্টিগতদিক থেকেও কিন্তু মানুষ আলাদা বা সৃজনশীল। মানুষ যেহেতু আলাদা তাই অবশ্যই মানুষে নিয়ে প্রানী হিসেবে উপলব্ধিটাও অনেক উচ্চতর মানের। একটি সুন্দর ও বাসযোগ্য পৃথিবীতে বসবাস মানুষ তার বুদ্ধিমত্তার দ্বারাই সৃষ্টি করতে পারে। সমস্ত অসাম্প্রদায়িক চেতনা থেকে মুক্ত হয়ে।

রাসেল: মানুষের পরে সবচেয়ে বুদ্ধমান প্রাণী কোনটি?

সুরাইয়া: শিম্পাঞ্জি, ডলপিন, হাতি, কাক এরাই মানুষের পরে সবচেয়ে বুদ্ধিমান।

রাসেল: অনেকেই বলেন সবার মেধাই সমান। কেউ খাটাতে পারে আর কেউ পারেনা। এ বিষয়টা আপনি কিভাবে দেখেন?

সুরাইয়া: সবার মেধা সমান কিনা বলা ঠিক যায় না।গডগিফ্টেট বলে কিছু আছে, যেটা সৃষ্টি কর্তা সবার মধ্যে দেন নাই। তারা একটু ব্যতিক্রম। আমার মতে যাদের সরণ শক্তি কম তারা যদি বেশি করে অধ্যাবসায় করে তবে যেকোনো কিছু অজর্ন করা সম্ভব তার শ্রমের মাধ্যমে। অধিক অধ্যাবসায় এর দ্বারায় সম্ভব কোন কিছু সাধন করা। খরগোশ এর চেয়েও কচ্ছপ ধীরগতি সম্পন্ন হয়েও কিন্তু দৌড় প্রতিযোগিতায় জয়ী হয়ে ছিল। তাই বলা যায় যার আগ্রহ আর চেষ্টা শক্তি আছে সেই খাটাতে পারে।

রাসেল: ছেলেদের মুখে দাঁড়ি ওঠে আর মেয়েদের মুখে ওঠে না। এটা নিয়ে যুবসমাজ কিংবা কৈশর মনে বেশ কৌতুহল। এটা কেন বা কিসের প্রভাবে, যদি বলতেন।

সুরাইয়া:এন্ড্রোজেন নামক হরমোন এর প্রভাবে ছেলেদের মুখে দাঁড়ি হয় এবং এই হরমোন মেয়েদের মুখে নেই বলেই হয় না।
রাসেল: এবার মানুষের আবিষ্কারের দিকে যাই একটু। বিজ্ঞানীদের নিরন্তর পরিশ্রমের ফলে আমরা আজকের এই ডিজিটাল যুগে পৌছাতে পেরেছি। আপনার মতে, বিজ্ঞান কি আশীর্বাদ না অভিশাপ?

সুরাইয়া: অবশ্যই একটা বিষয় এর দুটি দিক আছে, ভালো এবং মন্দ। বিজ্ঞান এর ভালো দিকগুলো কাজে লাগাতে পারলে তা আর্শীবাদ এবং তা নেগেটিভ ভাবে নিলে নিশ্চিয়ই অভিশাপ।

রাসেল: একজন মানুষের সুস্থ থাকতে শিল্প-সাহিত্যের চর্চার প্রয়োজন আছে কি? থাকলে কতটুকু?

সুরাইয়া: অবশ্যই আছে। স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল।মন ভালো থাকলে শরীরও ভালো থাকে। মন সুস্থ রাখার একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে শিল্প সাহিত্য চর্চা। তা সুস্থ থাকতে অবশ্যই সাহিত্যের প্রয়োজন আছে।

রাসেল: মানুষ মহাজগতের কতটুকু বা শতকরা কতভাগ জানতে পেরেছে?

সুরাইয়া: সঠিকভাবে না বলতে পারলেও আমার ধারণা ভাগের এক ভাগও এখনো জানা যায়নি।

রাসেল: মানব জীবনের সঙ্গাটি আপনার কাছে কেমন?

সুরাইয়া: মানব জীবন হচ্ছে সৃষ্টি কর্তার দেওয়া একটা আলটিমেটাম বা কিছু সময়। জন্মীলে মৃত্যু অনিবার্য। আমার কাছে মানবজীবন মানে সৃষ্টি কর্তার দেওয়া এই সমটাই মানবজাতির জন্য কিছু করে যাওয়া এবং পরবর্তী প্রজন্মের জন্য একটি অবিকৃত পৃথিবী রেখে যাওয়া। মানবজীবনটা হচ্ছে আসলে সফর এর মত।

রাসেল: অশেষ ধন্যবাদ আপু সময় দেওয়ার জন্য।

সুরাইয়া: আপনাকেও ধন্যবাদ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply




মালিকানা স্বত্ব © এমএমবি নিউজ ২৪- ২০২১
ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ।