শুক্রবার, ২৩ Jul ২০২১, ০৯:২৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ
কোরবানি নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য, আটক প্রধান শিক্ষক হংকং ক্রিকেটে দলের অধিনায়ক আইজাজ খান গ্রেফতার মাইন প্রতিরোধী গাড়ির প্রথম চালান ঢাকায় বিধিনিষেধ ভঙ্গ করে চলছে ফেরি, পায়ে হেঁটে ঢাকা আসছে মানুষ ১৮ বছর হলেই পাওয়া যাবে করোনার টিকা, সিদ্ধান্ত দ্রুতই টি-টোয়েন্টি সিরিজে সমতা ফেরালো জিম্বাবুয়ে বিধিনিষেধের প্রথম দিনে রাজধানীতে ৪০৩ জন গ্রেপ্তার বরগুনার দুই নারী কামারের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ আফগান বাহিনীকে সহযোগিতায় কয়েক দফা বিমান হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র : পেন্টাগন দ.আফ্রিকায় সহিংসতায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৩৭ পর্দা উঠল টোকিও অলিম্পিকের সন্তানকে রক্ষা করে মারা গেলেন মা পদ্মার পিলারে ফেরির ধাক্কা, তদন্ত কমিটি গঠন বিধিনিষেধ অমান্য: মালয়েশিয়ায় ২৫ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মৃত্যু ১৬৬, শনাক্ত ৬৩৬৪
প্রতিনিয়তই বাড়ছে মৃত্যু ও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, কোন পথে হাঁটছে টাঙ্গাইল?

প্রতিনিয়তই বাড়ছে মৃত্যু ও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, কোন পথে হাঁটছে টাঙ্গাইল?

বার্তা প্রধান, এমএমবি নিউজ।

টাঙ্গাইলে আজ নতুন করে ৯২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

টাঙ্গাইলে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে ও করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় টাঙ্গাইলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৩ জন। এছাড়াও টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মারা যান আরও ৩ জন।

শনিবার (১৭ জুলাই) সকাল পর্যন্ত এ নিয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এবং উপসর্গ নিয়ে জেলায় মোট ১৮৭ জনের মৃত্যু হলো।

এদিকে আজ নতুন করে ৯২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৪৮.৯৩ ভাগ। এ নিয়ে জেলায় মোট কোভিড আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার ৪৬৫ জন।

এছাড়াও চলতি মাসের ১৭ দিনে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৭৬১ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৬৯ জনের।

গত জুন মাসে জেলায় ২ হাজার ৯২৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ২৬ জনের।

সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায়, শুক্রবার ১৮৮টি নমুনা প্রেরণ করা হয়। এতে শনিবার নতুন করে ৯২ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়। আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ৬ হাজার ৯৮ জন। হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ১৪৬ জন। বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৫ হাজার ৩৪ জন। এখন পর্যন্ত মোট ৩২ হাজার ৫৩১ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছিলো। এর মধ্যে ২৬ হাজার ৯৮২ জনকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। জেলায় এখন পর্যন্ত ৫৩ হাজার ৬৭১টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয়। জেলায় মোট আক্রান্তের হার ২১.৩৬ ভাগ।

গত বছরের ৮ এপ্রিল জেলায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। সদর উপজেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। আর সবচেয়ে কম করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত হয় বাসাইল উপজেলায়। জেলায় করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করায় টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ড পর্যায়ক্রমে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

শুধু টাঙ্গাইল শহর নয় ব্যাপকহারে শহর থেকে গ্রামেও ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। বিশেষ করে বিগত কয়েকদিন ধরে গ্রামে বেড়েই চলছে কোভিড আক্রান্ত এবং উপসর্গের সংখ্যা। ঈদকে সামনে রেখে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে টাঙ্গাইলে মানুষের যাতায়াত বেড়ে যাওয়ায় ঈদ পরবর্তী সময়ে টাঙ্গাইলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এছাড়াও সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতার ঘাটতি দেখা গেছে। সাধারন মানুষ আরো সচেতন না হলে পরিস্থিতি আরো খারাপের দিকে যেতে পারে বলেও আশংকা করা হচ্ছে।

মোহাম্মদ আলী ফয়সাল,
বার্তা প্রধান,
এম.এম.বি নিউজ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply




মালিকানা স্বত্ব © এমএমবি নিউজ ২৪- ২০২১
ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ।