সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৫৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ
আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে রাজাপুর উপজেলায় সদস্য পদে জমজমাট প্রচারণা আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ পঞ্চগড়ে ট্রলারডুবি: মৃত বেড়ে ২৫ সান্তাহারে এ্যাম্পলসহ যুবক গ্রেপ্তার ১ কড়া নাড়ছে দুর্গাপূজা, শেষ সময়ে বগুড়ায় তুলির রঙে রঙিন হচ্ছে প্রতিমা বগুড়ায় ৩৫০০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার- ২ মাহমুদুল হাসান সোহাগের ব্যক্তিগত উদ্যোগে ক্রীড়া সামগ্রী বিতরন আজ আমার শেষ দিন এই দেশে, ফেসবুক স্ট্যাটাস লিখে যুবকের আত্মহত্যা মুন্সীগঞ্জে যুবদল কর্মী শাওন নিহতের প্রতিবাদে বগুড়ায় বিক্ষোভ সমাবেশ এবার দুর্গাপূজা ৩২১৬৮ মণ্ডপে কোভিডে আরও ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৫০ সরকারি ব্রজমোহন কলেজ মহাত্না অশ্বীনি কুমার (ডিগ্রি) হলে বড় দূর্ঘটনা আতংকে শিক্ষার্থীরা শিল্পীর তুলির টানে ফুটে উঠছে দেবী দুর্গার রূপ!! বগুড়ায় কাঁচাবাজারে অভিযানে চার ব্যবসায়ীর জরিমানা পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে সান্তাহারে বিএনপি’র সমাবেশ পাশবিকতা হাত থেকে রক্ষা পেল না প্রতিবন্ধী কিশোরী হাজরে আসওয়াদ: যেভাবে সাদা পাথর কালো হলো বহুমাত্রিক সম্পর্কের রোল মডেল ভারত-বাংলাদেশ ফুটবলে এবার বাংলাদেশের ছেলেদের দুর্দান্ত সাফল্য রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
বরগুনার পাথরঘাটায় পরকিয়ার জেরে তিন সন্তানের মাকে নিয়ে পালালেন প্রতিবেশি

বরগুনার পাথরঘাটায় পরকিয়ার জেরে তিন সন্তানের মাকে নিয়ে পালালেন প্রতিবেশি

রাজু আহমেদ, পাথরঘাটা প্রতিনিধিঃ

বরগুনা জেলার পাথরঘাটা থানার কাঠালতলী ইউনিয়নের কালিবাড়ির ৬ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা হাফিজ খাঁ (৫৫)  পরকিয়ার জেরে তার প্রতিবেশি হনুফা (৪০) বেগম (তিন সন্তানের মা) কে নিয়ে পলায়ন করে। প্রতিবেশী হনুফা বেগমের স্বামীর নাম কাঠালতলী ইউনিয়নের কালিবাড়ির ৬ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ছগির হেসেন (৪৫)। তার স্বামী এর দারিদ্রতার সূযোগ নিয়ে সে প্রায়ই তাদের বাড়িতে আসা যাওয়া করত। পরবর্তীতে হাফিজ খাঁ তাদের টাকা পয়সা ধার দিত ও আরো বিভিন্ন ধরনের সাহায্য সহযোগিতা করত। এর হনুফা বেগমের স্বামী বা পাড়া প্রতিবেশিরা সন্দেহ করত না। এই সুযোগে তারা তাদের মধ্যে এক ধরনের অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলে।

হাফিজ খাঁ ও হনুফা বেগম তার স্বামী ছগির হেসেন এর ঘরে থাকা নিয়ে একই উপজেলার গোলবুনিয়া নামক গ্রামে পালিয়ে যায়।হনুফা বেগমের বাবার বাড়ি কালমেঘা ইউনিয়নের পূর্ব কালমেঘার  গোলবুনিয়া নামক গ্রামে।  স্থানীয় লোকজন পালিয়ে আসার ঘটনা জানতে পেরে ধরে ইউপি সদস্যের হাতে তুলে দেয়। পরে ইউপি সদস্য উভয়পক্ষের অভিভাবক ডেকে  সব শুনে মেয়েকে মেয়ের বাবা ও হাফিজ খাঁকে তাদের স্থানীয় ইউপি সদস্য এর হাতে তুলে দেয়।

আমাদের প্রতিনিধি রাজু আহমেদ সড়জমিনে গেলে উঠে আসে অরো অনেক তথ্য।

ভুক্তভোগী  ছগির হেসেন জানান,  আমি প্রথমে সন্দেহ করতাম না। আমার প্রতিবেশিরা আমাকে মাঝে মাঝে অনেক কিছু বলত। একদিন আমি নিজেই  তাদের আপত্তিকর অবস্থায় ধরে ফেলি। তখন হাফিজ খাঁ আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। আমি মানসম্মান ও তিনটা সন্তানের দিকে তাকিয়ে কাউকে কিছু বলিনি। মনে করেছি ঠিক হবে। কিন্তু তারা ঠিক না হয়ে আমার কিছু টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয় ইউপি সদস্যরা সালিসী করলেও আমার টাকা পয়সা  ও স্বর্ণালংকার ফেরত দেয়নি। কারো কোন বিচার করেনি। আমি এর বিচার চাই।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply




মালিকানা স্বত্ব © এমএমবি নিউজ ২৪- ২০২১
ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়াও ব্যবহার করা যাবে। তবে সূত্র এমএমবি নিউজ ২৪ দেয়ার অনুরোধ রইল।
 
বাংলা English